1. salmankoeas@gmail.com : admin :
চুনারুঘাটে ৫০ শয্যা হাসপাতালে  ৩১ শয্যা নিয়ে চলছে কার্যক্রম । - দৈনিক ক্রাইমসিন
বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ০৭:৫১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
মানসিক ভারসাম্যহীন স্বামীকে ফিরিয়ে দিল কাজিপুর থানা পুলিশ অপ-সাংবাদিকতা করার প্রমাণ মিললে বহিস্কার মধুখালীতে ট্রাক চাপায় অটো-ভ্যানচালক নিহত, পথচারী আহত আদালতে হেরে গেলেন ব্যারিস্টার সুমন সর্বোচ্চ নিরাপত্তার মধ্যদিয়ে দ্বিতীয় ধাপে রাজনগর উপজেলায় ভোট গ্রহন শুরু হয়েছে একজন মানবিক সৎ জনবান্ধব ও নিষ্ঠাবান সফল উপজেলা চেয়ারম্যান সৈয়দ মোঃ শাহজাহান। নন্দীগ্রামে লুন্ঠিত ট্রাকভর্তি ধান পাবনায় উদ্ধার, গ্রেপ্তার ৩ মধুখালীতে সড়ক দুর্ঘটনায় হেলপার নিহত । কাজিপুরের ছালাভরা এখন “ফার্নিচার গ্রাম” নামে পরিচিত ফরিদপুর সদরে সামচুল, মধুখালীতে মুরাদ ও চরভদ্রাসনে আনোয়ার বিজয়ী

চুনারুঘাটে ৫০ শয্যা হাসপাতালে  ৩১ শয্যা নিয়ে চলছে কার্যক্রম ।

নিজেস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : মঙ্গলবার, ২০ জুন, ২০২৩
  • ৬৩ Time View

নিজেস্ব প্রতিবেদক

হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ফটকে ৫০ শয্যা লেখা থাকলেও ভেতরে ৩১ শয্যা নিয়ে চলছে এই হাসপাতালের কার্যক্রম। খুব একটা উন্নতি ঘটেনি স্বাস্থ্য সেবায়। চিকিৎসা নিতে আসা রোগী ও সঙ্গে থাকা স্বজনদের পোহাতে হয় নানা ভোগান্তি।

অবকাঠামোগত উন্নয়ন হলেও সংরক্ষণ ও সংস্কারের অভাবে ধ্বংসে পড়ছে পলেস্তারা। ফাটা টাইলস আর ভাঙা দরজা, জানালায় বিবর্ণ রূপ। লোকবলের অভাবে নষ্ট হচ্ছে পরীক্ষা- নিরীক্ষার কাজে ব্যবহৃত আনুষঙ্গিক যন্ত্রপাতি।

সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ হাসপাতালটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ও লোকবল নিয়োগের ব্যাপারে বার বার তাগাদা দিলেও কাজের কাজ কিছুই হচ্ছে না।

লোকবল ও আধুনিক যন্ত্রপাতি-সংবলিত ৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালটি যথাযথভাবে পরিচালিত হলে উপজেলার প্রায় পাঁচ লাখ মানুষের উন্নত চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত হতো বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

হাসপাতালের চক্ষু, সার্জারি ও গাইনি বিভাগে কোনো চিকিৎসক নেই। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক, জুনিয়র কনসালটেন্ট, সার্জারি, অ্যানেস্থেশিয়া ও গাইনি চিকিৎসক পদ এখন পর্যন্ত শূন্য। দীর্ঘদিন মেডিকেল টেকনোলজিস্ট, ল্যাব টেকনিশিয়ান, অফিস সহকারী, ওয়ার্ডবয়, এমএলএসএস, পিয়ন, সুইপারের পদ শূন্য রয়েছে। ফলে প্রতিদিন সেবা নিতে আসা ৫০০ থেকে ৬০০ রোগীকে নানা ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে।

স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের রেজিস্ট্রার থেকে পাওয়া তথ্যে জানা গেছে, প্রতি মাসে দুই হাজারেরও বেশি রোগী হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি হন। আউটডোরে আসে মাসে দেড় থেকে দুই লাখ মানুষ। ৩০ থেকে ৪০ জনের স্বাভাবিক প্রসব করানো হয়। হাসপাতালে পর্যাপ্ত শয্যার অভাবে মেঝেতে রেখেই চিকিৎসা দিতে হয়। রোগীর এত চাপ থাকলেও চিকিৎসক ও জনবল সংকট নিরসনে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে না বলে অভিযোগ হাসপাতালে আসা রোগী ও তাদের স্বজনদের।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, এমন সমস্যা নিয়েই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স চলছে। বছরের পর বছর। এ যেন দেখার কেউ নেই। ৫০ শয্যার হাসপাতাল চলছে ৩১ শয্যায়। লোকজনও নেই ঠিকমতো। অবস্থার উন্নতি না হলে এখানকার স্বাস্থ্য ব্যবস্থা ভেঙে পড়বে।

উপজেলায় প্রায় পাঁচ লাখ মানুষের ভরসা এই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মোট জনবলের ৬৫ শতাংশেরও বেশি পদ শূন্য। সাতজন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক থাকার কথা থাকলেও আছে মাত্র তিনজন মেডিকেল অফিসার। হাসপাতালে প্রসূতিদের জরুরি সেবায় চারজন মিডওয়াইফের একজনও নেই। গাইনি ও অ্যানেস্থেশিয়া চিকিৎসক না থাকায় অস্ত্রোপচারও বন্ধ। মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট, প্যাথলজি, ফার্মেসি, এসআই, ইপিআইয়ের ৬টি পদের বিপরীতে লোকবল দুইজন। অফিস সহায়ক, আয়া, ওয়ার্ডবয় পদে দুইজন করে থাকার কথা থাকলেও আছে একজন করে। টিকিট কর্মীর দুইটি পদও শূন্য।

চুনারুঘাট উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা ও স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ মোঃ মোজাম্মেল হোসেন বলেন, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি চিকিৎসার একমাত্র ভরসা হওয়ায় দিনরাত রোগীর ভিড় লেগে থাকে। কিন্তু পর্যাপ্ত জনবল না থাকায় সেবা প্রদান ব্যাহত হচ্ছে। হিমশিম খেতে হচ্ছে চিকিৎসকদের।

সংকটের বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে প্রতি মাসেই চিঠির মাধ্যমে জানানো হচ্ছে বলে ও জানান তাঁরা।

আরও সংবাদ পড়ুন ….

অন্যের জমি নিজের দাবি করলে ৭ বছরের জেল/ ফসলী জমি থেকে বালু বা মাটি উত্তোলন করা যাবে না।

জাতিসংঘ ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন নিয়ে বাংলাদেশকে নোট দিয়েছে : আইনমন্ত্রী

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর

আপনার প্রতিষ্টানের বিশ্বব্যাপি প্রচারের জন্য বিজ্ঞাপন দিন

© All rights reserved © 2023 দৈনিক ক্রাইমসিন
Theme Customized BY ITPolly.Com